ঢাকাThursday , 20 June 2024
  • অন্যান্য

কোটালীপাড়ায় নেই মাটির রাস্তার অস্তিত্ব, টেন্ডার হয়েছে এইচবিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
জুন ৪, ২০২৪ ৫:৩৮ অপরাহ্ণ । ৩১ জন
link Copied

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় নেই মাটির রাস্তার কোন অস্তিত্ব কিন্তু সেখানে হেরিং বোন বন্ড (এইচবিবি) বা ইটের সলিং এর টেন্ডার করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকার জনগণ বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। কিভাবে এখানে এই টেন্ডারটি হয়েছে তা নিয়ে এলাকাবাসী প্রশ্ন তুলেছেন।

অপরিকল্পিত এই উন্নয়নের বিষয় নিয়ে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উপজেলা প্রকৌশলীসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।

জানাগেছে, ২০২৩-২০২৪ অর্থ বছরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর থেকে উপজেলার হিরণ ইউনিয়নের মাঝবাড়ি গ্রামের ফুলু মাকের্টের দক্ষিণ পশ্চিম পাশের জামে মসজিদ হইতে মোশারেফ দাড়িয়ার বাড়ির রাস্তা এইচবিবি দ্বারা উন্নয়ন কাজের টেন্ডার হয়। এই কাজে বরাদ্ধ ধরা হয়েছে ৯লক্ষ ৬৪হাজার ২৫০টাকা। টেন্ডারে অংশগ্রহণ করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স রাবেয়া বসরি এন্টারপ্রাইজ এই কাজটি পায়।

কিন্তু সরেজমিনে গিয়ে উল্লেখিত স্থানে মাটির কোন রাস্তার অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। সেখানে রয়েছে একটি ডোবা জায়গা ও নিন্ম ভূমি।

এলাকার সমাজসেবক আবুল দাড়িয়া বলেন, যে স্থানে এইচবিবি টেন্ডার করা হয়েছে সেখানে কোন দিনইও মাটির রাস্তা ছিল না বা নির্মাণ করা হয়নি। একটি নিচু স্থানে কি করে এইচবিবি টেন্ডার করা হলো তা আমাদের বোধগম্য নয়। বিষয়টি জানার পরে আমরা এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উপজেলা প্রকৌশলীসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

ঠিকাদার বরকত আলী ভূইয়া বলেন, আমি টেন্ডারে কাজ পাওয়ার পর উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে আমাকে এইচবিবি করার জন্য একটি মাটির রাস্তা দেখিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে আমি কাজ করতে গেলে স্থানীয় লোকজন বাঁধা প্রদান করেন।

তারা জানায়, এই রাস্তায় এইচবিবির কোন টেন্ডার হয়নি। এটি একটি ব্যক্তি মালিকানাধীন রাস্তা। যেখানে টেন্ডার হয়েছে আপনি সেখানে গিয়ে কাজ করেন। টেন্ডারের উল্লেখিত স্থানে গিয়ে আমি মাটির রাস্তা পাইনি। এর ফলে আমি এখনো এই কাজ শেষ করতে পারিনি। কাজটি না করতে পারলে আমি আর্থিক ভাবে ক্ষতির সম্মূখিন হবো।

উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শফিউল আজম বলেন, উল্লেখিত মাঝবাড়ি গ্রামের ফুলু মাকের্টের দক্ষিণ পশ্চিম পাশের জামে মসজিদ হইতে মোশারেফ দাড়িয়ার বাড়ির রাস্তা মাটির রাস্তা নির্মানের একটি বড় প্রকল্প ছিল। সেখানে পূর্বে ১৮০মিটার মাটির রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। আমরা সেই ১৮০ মিটার রাস্তাই এইচবিবি টেন্ডার করেছি। কিন্তু প্রকল্পটির নাম সেই বড়ই রয়ে গেছে। এ নিয়ে একটু জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। আমরা সেটি নিরসন করার চেষ্টা করছি।

এমএইচএম/এসআর