ঢাকাFriday , 23 February 2024
  • অন্যান্য

সুনামগঞ্জ-১ আসনের নৌকার মাঝি অ্যাডভোকেট রনজিত সরকার

মোবারক হোসাইন
নভেম্বর ২৬, ২০২৩ ৫:১৪ অপরাহ্ণ । ৯৮ জন
link Copied

সুনামগঞ্জ ১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন এডভোকেট রঞ্জিত সরকার।

রোববার বিকাল ৪ টার দিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবাইদুল কাদের সংবাদ সম্মেলনে দলীয় মনোনিত প্রার্থী হিসেবে তার নাম ঘোষণা করেন।

কে এই এডভোকেট রঞ্জিত সরকার? তিনি সুনামগঞ্জ জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল তাহিরপুর উপজেলার কৃতি সন্তান। তিনি সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের বিপ্লবী সাংগঠনিক সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম সদস্য।

কিভাবে উত্থান হলো রনজিত সরকারের? সিলেট আওয়ামী লীগের রাজনীতির বর্তমান সমসাময়িক নেতাদের মধ্যে স্বৈরাচার এরশাদ সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন থেকে শুরু করে অদ্যাবধি পর্যন্ত যারা রাজনীতির মাঠে অসামান্য অবদান রেখে যাচ্ছেন তাঁদের মধ্যে এডভোকেট রঞ্জিত সরকারের নাম কোন ভাবেই ক্রমানুযায়ী নীচের দিকে রাখা সম্ভব নয়। সুনামগঞ্জের প্রত্যন্ত অঞ্চলে জন্ম নিয়ে হাওরের আফালের সাথে যুদ্ধ করে উচ্চ শিক্ষার ব্রতে সিলেট পদার্পণকারী রঞ্জিত সরকার কলেজ জীবনের শুরুতেই তাঁর রাজনৈতিক নৈপুণ্য দেখিয়ে নেতাদের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হন৷

সারাদেশ জুড়ে স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলন তুঙে৷ সিলেট শহরে সামনের কাতারে থেকে যারা আন্দোলনকে বেগবান করেছিলেন নির্যাতিত হয়েছিলেন এডভোকেট রঞ্জিত সরকার তাঁদের মধ্যে অন্যতম একজন। সিলেট সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি থাকাকালীন ১৯৮৯ সালে দীর্ঘ এক বছর স্বৈরশাসকের কারাগারে বন্দী ছিলেন তিনি।

তিনি যখন সিলেট জেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য তখন জিয়াউর রহমানের প্রতিষ্ঠিত বিএনপি ক্ষমতায়, সিলেট শহরে বিএনপি এবং জামাতের একচ্ছত্র আধিপত্য। এই আধিপত্য রোধে সিলেটের ছাত্রলীগের অসামান্য অবদানের গৌরবোজ্জ্বল। অংশগ্রহণের কারণে ১৯৯৩ সালে কারান্তরিত রঞ্জিত সরকারকে ৩মাসের ডিটেনশনে থাকতে হয়৷ বিএনপির দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করতে গিয়ে ১৯৯৫সালে আবারো ৪মাসের ডিটেনশনে ছিলেন সাবেক এই ছাত্রনেতা। কর্মী বান্ধব এই নেতা তাঁর জন্মস্থান তাহিরপুর- জামালগঞ্জ -ধর্মপাশা, ও মধ্যনগরের মানুষের সুখে দুঃখে ছুটে যাচ্ছেন বারবার৷ ২০১৭ সালের অকাল বন্যায় যখন সুনামগঞ্জের হাওর পাড়ের মানুষ দিশেহারা তখন বসে থাকেননি রঞ্জিত সরকার৷ নিজের সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে কৃষকের পাশে থেকেছেন বৈশ্বিক মহামারী করোনা পরিস্থিতিতে সিলেট নগরীসহ তাঁর নিজ এলাকা জামালগঞ্জ- তাহিরপুর- ধর্মপাশা- মধ্যনগরের অসহায় মানুষের মধ্যে ত্রান-সাহায্য নিয়ে হাজির হয়েছেন৷ শ্রমিক সংকটে যাতে কৃষকের ধান গোলায় তুলতে কষ্ট না হয় প্রায় ১ মাস সাধ্যানুযায়ী ছিলেন হাওরপাড়ে, বাইশের বন্যায় যখন স্থানীয় নেতারা ভয়ে নিরাপদ দুরত্বে পাড়ি দিয়েছিলেন তখন রনজিত সরকারই প্রথম শহর ছেড়ে ছুটে আসেন সুনামগঞ্জ-১ আসনের মানুষের পাশে দাড়ানোর জন্য। সাধ্যমতো সহযোগিতার হাতও বাড়িয়ে দিয়েছিলেন। অসাম্প্রদায়িক চেতনার উজ্জ্বল পথিকৃৎ রঞ্জিত সরকার একদিনের তৈরি নয়. বারবার ধংস হয়েই আবার নতুন করে সৃষ্টি হতে অভ্যস্ত।

ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ মুরাদ ও সুনামগঞ্জ এক আসনের তৃনমুল আওয়ামীলীগ ও জনসাধারণের সাথে কথা বললে তারা বলেন, আমরা সুনামগঞ্জ ১ আসনের তৃনমুল আওয়ামীলীগ ও সাধারণ মানুষ উনাকে নিয়ে গর্ব করি, বর্তমান তরুণ প্রজন্ম মনে করে সুনামগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন এর যোগ্য দাবিদার এডভোকেট রঞ্জিত সরকার, এইরকম দক্ষ এবং দৃঢ়চিত্তের মনোভাব সম্পন্ন নেতাই বর্তমানে সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমাদের প্রত্যাশা ছিল এরকম একজনকে আমাদের প্রতিনিধি করে সুনামগঞ্জ এক আসনে পাঠালে আমাদের তৃণমূল কর্মীরা আরো বেগবান হবে,এই আসনটি পুনরায় প্রকৃত আওয়ামী লীগের হাতে ফিরে এসেছে, এখন আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীগন মুল্যায়ীত হবে,এবং জামাত বিএনপি ও হাইব্রিড মুক্ত হবে। তাই আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের তৃণমূলের মনের আশা পুর্ন করেছেন।আমরা তৃণমূল আওয়ামীলীগ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই এবং এডভোকেট রঞ্জিত সরকার কে জয়যুক্ত করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কে এই আসনটি উপহার দিব, ইনশাআল্লাহ।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সুনামগঞ্জ-১ (জামালগঞ্জ, তাহিরপুর, ধর্মপাশা ও মধ্যনগর) আসনটিতে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করে জমা দিয়েছিলেন,সিলেট জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মানিত সদস্য অ্যাডভোকেট রনজিতছাড়াও আরও মোট ১৩ জন। মনোনয়নপত্র জমা কারিদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সরকার,সাবেক যুগ্ম সচিব বিনয় ভূষণ তালুকদার ভানু, সুনামগঞ্জ জেলা শ্রমিক লীগের সাবেক সভাপতি মো. সেলিম আহমদ, সুনামগঞ্জ-মৌলভী বাজার সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীমা আক্তার খানম,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হায়দার চৌধুরী লিটন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আখতারুজ্জামান সেলিম, জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা সম্পাদিকা সুখাইর রাজাপুর উত্তর ইউনিয়নের চেয়াম্যাম নাসরিন সুলতানা দীপা, আওয়ামী লীগ নেতা মো. মাহবুব খান,বঙ্গবন্ধু পরিষদের সুনামগঞ্জ জেলা আহ্বায়ক ড. মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার,ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র মিশিগান আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. নুরুল হাসান পারভেজ ও ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ বিলকিস।

এসআর