ঢাকাMonday , 15 April 2024

ত্রিশালে মাদ্রাসার ছাত্রীকে নিয়ে উধাও শিক্ষক

শফিকুল ইসলাম
এপ্রিল ১, ২০২৪ ৯:৩৩ অপরাহ্ণ । ২৪ জন
link Copied

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার ৩নং কাঁঠাল ইউনিয়নের নলচিড়া গ্রামের বাইতুল নুর জামে মসজিদের ঈমাম, ফাতেমাতুযরা রাঃ মহিলা মাদ্রাসার পরিচালক ও আরবি শিক্ষক আল আমিন (৪০) কর্তৃক তার নিজ মাদ্রাসার ১৬ বছরের এক ছাত্রীকে নিয়ে পালানোর ঘটনা ঘটেছে।

ঐ ছাত্রীর পরিবারের দাবী, তাদের ১৬বছর বয়সী কন্যাকে অপহরন করা হয়েছে। এ নিয়ে ত্রিশাল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন ছাত্রীর পিতা। মার্চ মাসের ২৭ তারিখে এই ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যসহ আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। শিক্ষক আল আমিনের ১স্ত্রী, ২ছেলে ও ২ কণ্যা সন্তান রয়েছে।

ত্রিশাল থানার অভিযোগ ও ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, বেশ কিছু দিন যাবৎ মোঃ আলামিন হুজুর ঐ ছাত্রী কে অনৈতিক কু-প্রস্তাব দিয়া আসিতেছে। তার প্রস্তাবে রাজী না হয়ে মাদ্রাসা থেকে নিজ বাড়িতে চলে আসে ঐ ছাত্রী। মান সম্মানের ভয়ে রাতে মাদ্রাসায় থাকে না ঐ শিক্ষার্থী। ঘটনার দিন মাদ্রাসা থেকে খবর আসে ট্রেনিং আছে, ওখানে দ্রুত যেতে হবে। তখন সে নিজ বাড়ি হইতে মাদ্রাসায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে নলচিড়া সাকিনস্থ নলচিড়া আবাসিক মহিলা মাদ্রাসার সামনের রাস্তায় পৌছিলে সেখানে পূর্ব হইতে উৎপেতে থাকা অভিযুক্ত আলামিন তাহার সহযোগী অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনের সহায়তায় আমার মেয়েকে জোর পূর্বক টানা হেছড়া করিয়া অজ্ঞাতনামা সিএনজি গাড়িতে উঠাইয়া অপহরন করিয়া নিয়া চলিয়া যায়। জোর পূর্বক অপহরন করার সময় তাহার ডাকচিৎকার শুনিয়া আশপাশের লোকজন আগাইয়া গেলেও সিএনজি গাড়িটি আটক করিতে পারে নাই।

এ ঘটনায় সেই হুজুরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেছে শিক্ষার্থীর স্থানীয় অভিভাবকগন।

শিক্ষক আল আমিন এর স্ত্রী জানান, আমার ২ছেলে ও ২কন্যা সন্তান আছে। আমার স্বামী যে কাজটি করেছে সমাজে মুখ দেখাতে পারতেছিনা। যে মেয়েটি নিয়ে আমার স্বামী পালিয়েছে সে মেয়েটি আমার স্বামীর মাদ্রাসাতে পড়াশোনা করে। এ ব্যাপারে শিক্ষক আল আমিন এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে মোবাইল বন্ধ থাকায় মন্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

স্থানীয়রা বলেন, আমরাও শুনেছি যে একজন ছাত্রীকে নিয়ে সে পালিয়েছে,আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি। তিনি একজন আরবির শিক্ষক হয়ে যে কাজ করেছে,এইটা আমাদের কাছে লজ্জার।

ত্রিশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ কামাল হোসেন বলেন, অভিযোগ হাতে পেয়েছি, তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।