ঢাকাWednesday , 12 June 2024
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ক্ষমতার জোরে বিল্ডিং কোড না মেনেই বহুতল ভবন নির্মাণ!

মো. শহীদুল্লাহ
নভেম্বর ২৩, ২০২৩ ৬:৫৯ অপরাহ্ণ । ৪১০ জন
link Copied

কক্সবাজার শহরের উত্তর রুমালিয়ারছড়ার ইটখোলা সড়ক বায়তুর রিদওয়ান জামে মসজিদের পাশে গড়ে উঠছে অনুমোদনহীন বহুতল ভবন। কোনো ধরণের ইমারত নির্মাণ আইনের তোয়াক্কা না করে খেয়ালখুশি মতো ক্ষমতার জোরে এই ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ফলে একদিকে লঙ্ঘন হচ্ছে রাষ্ট্রীয় বিধি অন্যদিকে ভুক্তভোগী হচ্ছেন এলাকার লোকজন। পরিবেশ প্রতিবেশের সংকটাপন্ন পরিস্থিতির সৃষ্টি করলেও নির্বিকার রয়েছেন অভিযুক্তরা।

সরেজমিন, উত্তর রুমালিয়ারছড়ার প্রয়াত আনোয়ার সালামের ওয়ারিশগণ সংকটাপন্ন এই ভবনটি নির্মাণ করে চলেছেন। ভবনটি নির্মাণে অনুসরণ করা হয়নি কোনো আদর্শ কাঠামো। যেনোতেনো ভাবে একটি ভবন নির্মাণ ম্যাপ রাজমেস্ত্রির হাতে তুলে দিয়ে দায় সারা ভাবে গড়ে তোলা হয়েছে ৩ তলা। চতুর্থ তলার কাজ চলমান। ভবনটির সাথে লাগোয়া সড়কটি প্রস্থে মাত্র ৪ থেকে ৫ ফুট। নীতিমালা অনুযায়ী এধরণের বহুতল ভবন নির্মাণে সংশ্লিষ্ট সড়কের প্রস্থ কমপক্ষে ৩ মিটার হতে হবে বলে বিধান রয়েছে। জরুরী গমন নির্গমনেও ঝুঁকি মোকাবেলা করতে হবে প্রতিবেশী ভবনে বসবাসকারীদের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক স্থানীয় ব্যক্তি জানান, প্রয়াত আনোয়ার সালামের ওয়ারিশগণ ক্ষমতার জোর দেখিয়ে এই ভবন নির্মাণ করে যাচ্ছে। তাঁর বড় ছেলে ভয়ঙ্কর এক অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাবাস করছে। তাদের রয়েছে বিপুল কালো টাকা। এছাড়াও মেয়ের জামাইরা প্রভাবশালীদের সাথে সখ্যতা গড়ে বেপরোয়া মনোভাব নিয়ে অনুমোদন ছাড়াই এই ভবন নির্মাণ করছে। কোনো উজর আপত্তি জানাতে গেলে বড় বড় সচিব, ব্যবসায়ী নেতা ও সরকারী কর্মকর্তাদের নিকটাত্মীয় বন্ধু ভাই পরিচয় দিয়ে ধমক দেন। একারণে তাদের কিছু বলাও যায় না।

যোগাযোগ করা হলে অভিযুক্ত ভবনটির মালিকানার অংশীদার ও প্রয়াত আনোয়ার সালামের মেয়ের জামাই জসিম উদ্দিন প্রতিবেদকের কাছে দাবী করেন, ভবনটি নির্মাণে তারা যাবতীয় অনুমোদন ও ছাড়পত্র সংগ্রহ করেছেন। অন্যদিকে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক) তাদের একাধিকবার নোটিশও দিয়েছে। সেভাবেই তারা অগ্রসর হচ্ছেন।

এরপরে অভিযুক্ত ভবনটির মালিক প্রয়াত আনোয়ার সালামের বড় মেয়ের জামাই পরিচয় দিয়ে নেছার নামে একজন প্রতিবেদকের কাছে ফোন দিয়ে নানা ভাবে হুমকি দেওয়ার চেষ্টা করেন। ভবন নির্মাণে নীতিমালা মানা হয়েছে কীনা জানতে চাইলে তিনিও মৌখিক ভাবে দাবী করেন উক্ত ভবন নির্মাণে তাদের অনুমোদন কিংবা ছাড়পত্র রয়েছে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট অনুমোদন কিংবা ছাড়পত্র দেখানো যাবে কি-না জানতে চাইলে তিনি এসব কাগজপত্র প্রতিবেদককে দেখাতে বাধ্য নন বলে দাবী করেন।

এদিকে উত্তর রুমালিয়ারছড়ায় প্রয়াত আনোয়ার সালামের নামে ভবন নির্মাণের কোনো আবেদন আসেনি কিংবা অনুমোদনও দেওয়া হয়নি নিশ্চিত করে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কউক) অথরাইজেশন অফিসার মোহাম্মদ রিশাদ-উন নবী প্রতিবেদককে বলেন, অনুমোদন ছাড়া কেউ ভবন নির্মাণ করে ফেললে আমরা তাদের প্রথমে নোটিশ প্রদান করে থাকি। পরপর তিনবার নোটিশ দেওয়ার পরেও যদি অভিযুক্তরা আইনের অনুসরণ না করে তাহলে আমরা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে বিদ্যমান আইনে চূড়ান্ত ব্যবস্থা নিয়ে থাকি।

এনপি