ঢাকাThursday , 23 May 2024
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সরকার সারাদেশকে ‘তালাবদ্ধ’ করে রেখেছে: রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নভেম্বর ১১, ২০২৩ ১০:২৭ অপরাহ্ণ । ৭৯ জন
link Copied

সরকার শুধু বিএনপির কার্যালয় নয়, সারাদেশকে ‘তালাবদ্ধ’ করে রেখেছে বলে অভিযোগ করেছেন রুহুল কবির রিজভী।

শনিবার বিকালে আত্মগোপনে থেকে এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে সারাদেশের পরিস্থিতি তুলে ধরতে গিয়ে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব এই অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, ‘যে সমস্ত জায়গায় আমরা সংবাদ সম্মেলন করতাম বিশেষ করে আমাদের দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় আপনারা জানেন পুলিশ দলীয় কার্যালয় অবরুদ্ধ করে রেখেছে। তারা সেখানে তালা মেরে প্রতি মুহুর্তে অবস্থান করছে। তালা মারার এই পরিস্থিতি শুধু পার্টি অফিসে নয়, ওরা সারাদেশেই তালা মেরে রেখেছে।”

‘ওরা তালা মেরে রেখেছে, বন্দি করে রেখেছে গণতন্ত্রকামী মানুষকে যাতে তারা কথা বলতে না পারে, যাতে তারা সত্য উচ্চারণ করতে না পারে।ঘরে ঘরে এখন আতঙ্ক। মানুষের সুখ-শান্তি সব ধবংস করে জল্লাদের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছে শেখ হাসিনা।”

সরকারের এই ‘দমনপীড়নে এক দফা আন্দোলন রুখা যাবে না’ বলে হুশিয়ারি দিয়ে রিজভী বলেন, ‘জনগনের এই ত্যাগ বৃথা যাবে না। গণতন্ত্রের বিজয় হবেই ইনশাল্লাহ।”

তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় সারা দেশে ৩১৫ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ২৮ অক্টোবরের সমাবেশের পর থেকে এই পর্যন্ত ১৩ হাজার ৩৮৬ জন নেতা-কর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এই সময়ে মোট মামলার সংখ্যা ৬১৩টি অধিক এবং এতে আসামী করা হয়েছে ৪৮ হাজার ৪৪৩জনের অধিক নেতা-কর্মীকে।

‘ভুয়া নির্বাচনের জন্য সরকার মরিয়া’

রিজভী বলেন, ‘অতীতের মতো ভুয়া নির্বাচনের নামে তামাশা করতে বেপরোয়া ও ভয়ংকর হয়ে উঠেছে আওয়ামী ফ্যাসিস্ট সরকার। ৫৭ সেকেন্ডে নৌকা মার্কায় ৪৩টি সিল মারা নির্বাচনের জন্য বেসামাল এখন শেখ হাসিনা। আপনারা জানেন যে, ২০১৮ সালের নির্বাচনসহ বিভিন্ন নির্বাচনে যে কাউন্টিং সেটা হচ্ছে এখন অতীতের কোনো রেকর্ডে এটা খুঁজে পাওয়া যাবে না।”

‘শেখ হাসিনার নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় এটা সম্ভব।”

এজন্য সারাদেশে গ্রেফতার ও মিথ্যা মামলা দায়েরের ঘটনা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘‘ এজন্য জনগনের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে তার বিভিন্ন বর্গী বাহিনী।যেমন র‌্যাব, পুলিশ, বিজেবি এবং আওয়ামী যুবলীগ-ছাত্রলীগ-স্বেচ্ছাসেবক লীগ-ছাত্র লীগ-মতস্যজীবী লীগসহ নানা লীগে। তাদের কুলাঙ্কারী তান্ডবে ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে গোটা বাংলাদেশ।”

‘যুদ্ধকালীন নিস্তব্ধ আতঙ্কের পরিবেশের মধ্যে জীবনযাপন করছে সাধারণ মানুষ।ভিন্নমত প্রকাশ, বহুমাত্রিকতা, গণতন্ত্রের মৌল বিষয়গুলো চিরতরে অস্তচলে যাত্রার অশনি সংকেত দেখতে পাওয়া যাচ্ছে। ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার শান্তিপূর্ণ আন্দোলন-সংগ্রামে জনগনের অভাবনীয় অংশগ্রহন দেখে ক্ষমতা হারানোর আতঙ্কে ভীত-সন্ত্রস্ত সরকার প্রধান হিংস্র হন্তারুক হয়ে উঠেছেন, তার নির্দেশে দেশকে রীতিমতো শ্বাসরুদ্ধ্রকর পরিস্থিতিতে নিক্ষেপ করা হয়েছে। জনগন এখন একাত্তর সালে মুক্তিযুদ্ধের সময়ের ভয়ংকর পরিবেশে বসবাস করছে। পুলিশের অতিদলবাজরা এখন আওয়ামী লীগ লিমিটেড কোম্পানির কর্মচারিতে পরিণত হয়েছে।”

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা-কর্মচারিরা ‘দলবাজ’ এবং যুব লীগ-ছাত্রলীগ-স্বেচ্ছাসেবকলীগরা ‘রাজাকার’ এর ভুমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে বলে মন্তব্য করেন রিজভী।

‘অবরোধ: আওয়ামী সন্ত্রাসীরা বাসে আগুন দিচ্ছে’

রিজভী বলেন, ‘কাল ভোর ৬টা থেকে অবরোধ শুরু হবে। রোববার ভোর ৬টা থেকে মঙ্গলবার ভোর ৬ পর্য্ন্ত রাজপথ, রেলপথ, নৌপথে সর্বাত্মক অবরোধ কর্মসূচি সফল করার আহ্বান জানাচ্ছি। আমাদের এই গণতান্ত্রিক কর্মসূচি সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ।”

‘কিন্তু শেখ হাসিনার সরকারের নির্দেশে বিরোধী দলের আন্দোলনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে হাতুড়ি-চাপাতি-লগি-বৈঠাধারী আওয়ামী সন্ত্রাসীরা যানবাহনে আগুন দিচ্ছে, তান্ডব চালাচ্ছে। এর অসংখ্য প্রমাণ, অসংখ্য ভিডিও চিত্র, অসংখ্য স্থিরচিত্র আমাদের হাতে রয়েছে এবং অনেকের হাতে এসব তথ্য প্রমাণ রয়েছে, গণমাধ্যমেও কিন্তু ক্রমান্বয়ে এগুলো প্রকাশ পাচ্ছে। এই যে কোরাস গাইছেন যে, সহিংস কর্মসূচি, অগ্নি সন্ত্রাস, আগুন সন্ত্রাস… এসব বলে প্রতিদিন ওবায়দুল কাদের সাহেব(আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক), হাছান মাহমুদ(যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক) সাহেবরা যে ধরনের অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছেন… অপপ্রচারে লিপ্ত থাকলে সেটা দিয়ে মানুষকে বিশ্বাস করা যায় না, আপনাদের অপপ্রচারও জনগন বিশ্বাস করে না।”

সরকার পদত্যাগের ‘একদফা’ দাবিতে বিএনপিসহ সমমনা জোটগুলো রোববার ভোর ৬টা থেকে টানা ৪৮ ঘন্টার অবরোধ কর্মসূচি শুরু করবে। এর আগেও তারা দুই দফায় অবরোধের দফা অবরোধ কর্মসূচি পালন করে।

এসআর