ঢাকাSaturday , 24 February 2024

ময়মনসিংহ সড়কে র‌্যাবের আভিযানে ৫০ চাঁদাবাজ গ্রেফতার

মোঃ জাকির হোসেন
ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৪ ৭:১৩ অপরাহ্ণ । ১১০ জন
link Copied

ময়মনসিংহে সড়ক ও মহাসড়কে সবজিসহ অন্যান্য পণ্যবাহী ট্রাক হতে অবৈধভাবে চাঁদা উত্তোলনের সময় হাতেনাতে ৫০ জন চাঁদাবাজকে গ্রেফতার করেছে ময়মনসিংহ র‌্যাব-১৪। এসময় চাঁদাবাজদের কাছ থেকে নগদ ৬০,৮৬১ টাকা , মোবাইল ফোন ৪৩ টি ও বিপুল পরিমাণ চাঁদা আদয়ের রশিদ উদ্ধার করের‌্যাব-১৪।

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮ টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ময়মনসিংহে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে সংঘবদ্ধ পণ্যবাহী গাড়িতে চাঁদাবাজ চক্রের সক্রিয় ৫০ সদস্য কে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

ময়মনসিংহ র‌্যাব-১৪ এর দপ্তর থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি এ তথ্য জানানো হয়।

র‌্যাব জানায়, সাম্প্রতিক সময়ে ময়মনসিংহসহ সারাদেশে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।যার ফলে দেশের সকল শ্রেণীর নাগরিকগণ বাজার করতে গিয়ে দূর্ভোগের স্বীকার হচ্ছেন। পণ্য উৎপাদনের স্থান হতে পাইকারী বাজারে পরিবহনের সময় দেশের বিভিন্ন সড়ক ও মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ধাপে ধাপে চাঁদা দেয়ার কারণে পাইকারী বাজারে এসে বেড়ে যাচ্ছে সবজির দাম। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের উৎপাদনকারীদের নিকট হতে পন্য সামগ্রী সংগ্রহ পূর্বক ট্রাক/পণ্যবাহী যানবাহনে পাইকারী ও খুচরা বাজারে পৌছানোর সময় পথিমধ্যে নামে বে-নামে ভূয়া রশিদ অথবা কখনো কৌশলে বিভিন্ন ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠানের নাম ব্যবহার করে বিপুল পরিমান অর্থ চাঁদাবাজি করা হয়।

উক্ত জনদূর্ভোগ দূর করার লক্ষ্যে র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী ময়মনসিংহ সহ সারাদেশে র‌্যাবের বিভিন্ন ইউনিটের গোয়েন্দা দল তাদের নিজ নিজ দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় পাইকারী বাজারসহ বিভিন্ন স্থানের চাঁদাবাজির তথ্য উদ্ঘাটনের জন্য কাজ শুরু করে।

এরই ধারাবাহিকতায় ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানাধীন শম্ভুগঞ্জ ব্রীজ এলাকা থেকে ১২ জন, শম্ভুগঞ্জ বাজার এলাকা থেকে সর্বমোট ৭ জন, রহমতপুর বাইপাস ও আকুয়া বাইপাস এলাকা থেকে ১১ জন, মুক্তাগাছা সদর এলাকা থেকে ৭ জন, তারাকান্দা উপজেলার কাশিগঞ্জ এলাকা থেকে ১৩ জন কে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১৪।

র‌্যাব আরো জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা উক্ত চাঁদাবাজির সাথে তাদের সম্পৃক্ততার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করে। তারা ময়মনসিংহের বিভিন্ন সড়ক ও মহাসড়কে পণ্যবাহী গাড়িতে চাঁদাবাজি করে। গ্রেফতারকৃতরা কয়েকটি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে প্রতি রাতে ময়মনসিংহের বিভিন্ন এলাকায় রাস্তার উপর অবস্থান নেয়। দেশের বিভিন্ন স্থান হতে পণ্যবাহী যানবাহন ময়মনসিংহের প্রবেশের সময় তারা লেজার লাইট, লাঠি ও বিভিন্ন সংকেতের মাধ্যমে গাড়ি থামিয়ে ড্রাইভারদের নিকট অবৈধভাবে চাঁদা আদায় করে থাকে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে তারা চাঁদা আদায়ের রশিদও প্রদান করে থাকে। ড্রাইভাররা তাদের চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাদের গাড়ি ভাংচুর, ড্রাইভার-হেলপারকে মারধর সহ প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে। তারা প্রতিটি ট্রাক ও পণ্যবাহী যানবাহন হতে ১৫০-২৫০ টাকা চাঁদা আদায় করে থাকে। পণ্যবাহী কোন গাড়ি দেখলেই তারা লেজার লাইটের আলো নিক্ষেপ করে তা থামিয়ে কৌশলে বিভিন্ন অজুহাতে চাঁদা আদায় করে থাকে। বিশেষ করে মধ্য রাতে ময়মনসিংহের বিভিন্ন এলাকায় যখন পণ্যবাহী ট্রাক ঢাকা প্রবেশ করে উক্ত সময় সড়কে এমন চিত্র শুরু হয়। উক্ত চক্র ময়মনসিংহের বিভিন্ন স্থান হতে প্রতি রাতে পণ্যবাহী গাড়ির চালকদের নিকট হতে লক্ষাধিক টাকা চাঁদা আদায় করে থাকে বলে জানা যায়।

মাত্র তিন ঘন্টার অভিযান পরিচালনা করে সর্বমোট ৬০,৮৬১ টাকা , মোবাইল ফোন ৪৩ টি ও বিপুল পরিমাণ চাঁদা আদয়ের রশিদ উদ্ধার সহ ৫০ জন শীর্ষ চাঁদাবাজকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪, ময়মনসিংহ।

র‌্যাব আরো বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।